Thursday , November 26 2020

৩ বেলা খাবার জোটে না, অথচ একমাসের বিদুৎবিল ১২৮ কোটি টাকা

যে পরিবারে তিন বেলা ভরপেটের খাবার জোটে না তাদের বিদুৎবিল মাসিক ১২৮ কোটি টাকা ভাবতে পারেন ! তবুও রাতের বেলায় যেন ঘর আলোকিত থাকে, তাই অনেক কষ্টে বাড়িতে বিদুৎ সংযোগ নিয়েছিলেন। আর বিপত্তি ঘটলো এখানেই। তারা নাকি এক মাসে ১২৮ কোটি টাকার বিদুৎ খরচ করেছেরন। কোটি টাকার বিদুৎ বিল দেখে দরিদ্র এই পরিবারে চোখ কপালে উঠে গেছে। এমনটাই খবর এসেছে আনন্দবাজার পত্রিকায়।

ভারতের উত্তর প্রদেশের হাপুর জেলার চামরি গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছে। এই পরিবারের প্রধান কর্তার নাম মো. শামিম। মো. শামিম জানানা যে, তাদের বাড়িতে ২ কিলোওয়াটের বিদুৎ সংযোগ রয়েছে। বাতি- ফ্যান মিলিয়ে প্রতি মাসে সর্বচ্চ ৭০০ টাকার মত বিদুৎ বিল আসে।
মো. শামিমের দাবি, প্রথম দিকে কিছু বুঝেই উঠতে পারিনি। তারপর বিলের কাগজ নিয়ে ছুটে যাই ‍বিদুৎ দফতেরে। হিসেবে কোথাও ভুল হয়েছে বলে জানান। কিন্তু তার কথায় কেউ কানে তোলেননি। ওই টাকা মেটানোর মত তার কিংবা তার পরিবারের সামর্থ ছিলনা। তাই টাকা জমা দেওয়ার নির্ধারিত দিন পার হয়ে গেলে বিদুৎ সংযোগ কেটে বিচ্ছন্ন করে দেওয়া হয়।

তার এই ১২৮ কোটি টাকার বিদুৎ বিল প্রসঙ্গে, স্থানীয় বিদুৎ দফতরের ইঞ্জিনিয়ার রাম শরণ বাবু বলেন, আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি এটি যে সমস্যা রয়েছে তা হলো কারিগরি ত্রুটির কারণে এমনটি হয়েছে। এটি এমন বড় কিছু বিষয় নয়, তবে বিলের কপি হাতে পেলে সবকিছু খতিয়ে দেখবো আমার। যেহেতু ধারণা করা হচ্ছে যে, কারিগরি ত্রুটির কারণে এমনটি হয়েছে, তাই এটি নিয়ে এত চিন্তার কিছু নেই। ভুল হলে আমরা সংশোধন করে নতুন করে ওই দরিদ্র পরিবারকে নতুন বিল দেওয়া হবে। এবং সেই সাথে তার বাড়িতেও বিদুৎ সংযোগ দেওয়া হবে।

আমার এখন শুধু মাত্র বিলের কপিটি হাতে পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছি। দেখা যাক মো. শামিম কবে নাগাত আমাদের হাতে তার ১২৮ কোটি টাকার বিলের কপি তুলে দেয়।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *