Image: google

সুখবর জানাল চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা, করোনা ভাইরাসকে মেরে ফেলতে সক্ষম এই জীবানুনাশক

সুখবর জানাল চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা, করোনা ভাইরাসকে মেরে ফেলতে সক্ষম এই জীবানুনাশক – করোনার ভয়ে কাঁপছে সারা বিশ্ব। এমন অবস্থায় পাওয়া গেছে সুখবর। বলা হচ্ছে, অ্যান্টি-প্যারসিটিক বা পরজীবীনাশী ওষুধ ধ্বংস করছে করোনাভাইরাসকে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই করোনাভাইরাসকে মেরে ফেলছে এই ওষুধ। মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বাধীন এক গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যান্টি-প্যারসিটিক ওষুধ ইভারমেকটিনের এক ডোজই করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে।

অ্যান্টিভাইরাল রিসার্চ জার্নালে এই গবেষণটি প্রকাশিত হয়েছে। অনুমোদিত এই ওষুধটি এইচআইভি, ডেঙ্গু এবং ইনফ্লুয়েঞ্জাসহ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর। মোনাশ বায়োমেডিসিন ডিসকভারি ইনস্টিটিউটের ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ আজ শুক্রবার বলেন, আমরা দেখেছি, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সমস্ত ভাইরাল আরএনএ (কার্যকরভাবে ভাইরাসের সমস্ত জিনগত উপাদান ধ্বংস) থেকে মুক্তি দিতে পারে ইভারমেকটিনের এক ডোজ। এই পরজীবীনাশী ওষুধটির শুধুমাত্র ল্যাবেই পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এখনো মানবদেহে পরীক্ষা করা হয়নি।

তবে বলা হচ্ছে, ইভারমেকটিনের এক ডোজই মানব কোষে বেড়ে যাওয়া করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে। এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তর গবেষণা করা হবে। এর পরবর্তী পদক্ষেপটি হবে, মানব দেহের জন্য সঠিক ডোজ নির্ধারণ করা। আবার মানুষের জন্য নিরাপদ কি-না তা নিশ্চিত করা। ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ বলেন, আমাদের বিশ্বব্যাপী মহামারি দেখা দিয়েছে। অনুমোদিত কোনো চিকিত্সা নেই এই রোগের।

তবে আমাদের এমন একটি যৌগ তৈরি করতে হবে যা এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে পাওয়া যায়। আর তা মানুষকে তাড়াতাড়ি সহায়তা করতে পারে।করোনার ভয়ে কাঁপছে সারা বিশ্ব। এমন অবস্থায় পাওয়া গেছে সুখবর। বলা হচ্ছে, অ্যান্টি-প্যারসিটিক বা পরজীবীনাশী ওষুধ ধ্বংস করছে করোনাভাইরাসকে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই করোনাভাইরাসকে মেরে ফেলছে এই ওষুধ। মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বাধীন এক গবেষণায় দেখা গেছে,

অ্যান্টি-প্যারসিটিক ওষুধ ইভারমেকটিনের এক ডোজই করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে। অ্যান্টিভাইরাল রিসার্চ জার্নালে এই গবেষণটি প্রকাশিত হয়েছে। অনুমোদিত এই ওষুধটি এইচআইভি, ডেঙ্গু এবং ইনফ্লুয়েঞ্জাসহ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর। মোনাশ বায়োমেডিসিন ডিসকভারি ইনস্টিটিউটের ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ আজ শুক্রবার বলেন, আমরা দেখেছি,

২৪ ঘণ্টার মধ্যে সমস্ত ভাইরাল আরএনএ (কার্যকরভাবে ভাইরাসের সমস্ত জিনগত উপাদান ধ্বংস) থেকে মুক্তি দিতে পারে ইভারমেকটিনের এক ডোজ। এই পরজীবীনাশী ওষুধটির শুধুমাত্র ল্যাবেই পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এখনো মানবদেহে পরীক্ষা করা হয়নি। তবে বলা হচ্ছে, ইভারমেকটিনের এক ডোজই মানব কোষে বেড়ে যাওয়া করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে। এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তর গবেষণা করা হবে। এর পরবর্তী পদক্ষেপটি হবে,

মানব দেহের জন্য সঠিক ডোজ নির্ধারণ করা। আবার মানুষের জন্য নিরাপদ কি-না তা নিশ্চিত করা। ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ বলেন, আমাদের বিশ্বব্যাপী মহামারি দেখা দিয়েছে। অনুমোদিত কোনো চিকিত্সা নেই এই রোগের। তবে আমাদের এমন একটি যৌগ তৈরি করতে হবে যা এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে পাওয়া যায়। আর তা মানুষকে তাড়াতাড়ি সহায়তা করতে পারে।

About By Editor

Check Also

রান্নার গ্যাস বুকিংয়ে এখন পাচ্ছেন ৫০ টাকা ছাড়!

রান্নার গ্যাস বুকিংয়ে এখন পাচ্ছেন ৫০ টাকা ছাড়! – দেশজুড়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ার পাশাপাশি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x