Image: google

সাবধান:- করোনা প্রতিরোধ করতে যেখানে-সেখানে জীবাণুনাশক ছিটাবেন না!

সাবধান- করোনা প্রতিরোধ করতে যেখানে-সেখানে জীবাণুনাশক ছিটাবেন না! – সংক্রমণের ভয় হলেই কি সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইডের মতো ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট মানে জীবাণুনাশক ব্যবহার করা যায়? করলেও তা কোথায় কোথায় ব্যবহার করা যায়? এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলেছে নানা মহলে। ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট নিয়ে সাধারণ মানুষের ভুল বোঝাবুঝি দূর করতে এ বার তাই নির্দিষ্ট নির্দেশিকা বের করল ভারতের কেন্দ্র সরকার।

তাতে বলা হয়েছে, মানবদেহে ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট ব্যবহার করা রীতিমতো বিপজ্জনক। অনেক সময়ে এই ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট বা জীবাণুনাশক অতিমাত্রায় ব্যবহার করলে তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে। দেশটির স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যে নির্দেশিকা ব্যবহার করা হয়েছে তাতে স্পষ্ট বলা হয়েছে মানবদেহে এ ধরনের ওষুধ ব্যবহার অত্যন্ত বিপজ্জনক।

তাই, বাইরে ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট ব্যবহার করতে গেলে হাতে গ্লাভস পরা-সহ বিভিন্ন সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। এ ধরনের মিশ্রণ ব্যবহার করতে গেলে প্রয়োজনীয় সতর্কতা কী কী নিতে হবে, তা-ই দেওয়া আছে ওই নির্দেশিকায়। তাতে বলা হয়েছে, এই ধরনের রাসায়নিক জিনিস শুধুমাত্র খোলা দেওয়াল বা মেঝেতে ব্যবহার করতে বলা হয়।

কোনও অবস্থাতেই মানুষের দেহে ব্যবহার করা যাবে না। তাতে ওই ব্যক্তি শারীরিক এবং মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন। কোভিড 19 ভাইরাসের সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও তার গায়ে ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট দেওয়া যাবে না। এমনকি, শরীরের ভিতরের অংশেও ওই ডিস-ইনফেক্ট্যান্ট দেওয়া যাবে না। ডিস-ইনফেক্ট্যান্টের মধ্যে যে ক্লোরিন থাকে তা এক ব্যক্তির চোখ এবং ত্বকের ক্ষতি করতে পারে।

ক্ষতি হতে পারে পেটেরও। এমনকি, ক্লোরিন নাকে মুখে ঢুকে গেলে নাকের ভিতরের চামড়া, শ্বাসনালী এবং ফুসফুসের ক্ষতি হতে পারে। কেন্দ্রের এক কর্তা বলেন, “করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে এমন অনেক ভুল বোঝা মানুষকে অনেক ভাবে ক্ষতি করতে পারে। তা করোনায় অসুস্থ হওয়ার থেকে কম নয়। সে জন্যই এমন নির্দেশিকা।”

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *