image: google

শরীরের সার্বিক উন্নতি ঘটাতে কারিপাতার জুড়ি মেলা ভার

কারিপাতা অসাধারণ একটি ভেষজ উপাদান। আর কারি পাতা শরীরের সার্বিক উন্নতি ঘটাতে এর জুড়ি মেলা ভার। এক কথায় বলা যেতে পারে মাতার চুল পড়া থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত শরীরের প্রতিটি অঙ্গের কর্ম ক্ষমতা বাড়াতে কারিপাতা বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। কারিপাতা ভারতীয় উপমহাদেশের যত্রতত্র দেখা যায়। এই গাছের পাতা সুগন্ধি মশলা হিসেব রান্নায় ব্যবহার করা হয়। অনেকে ঝোল জাতীয় রান্নায় কারিপাতা ব্যবহার করা হয়। এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, কারিপাতা খেলে রক্তে প্রায় ৫০% শর্করা কমে যায়। এতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন, বিটা ক্যারোটিন এর মত উপাদান থাকারয় সহজে ডায়াবেটিস রোগ বাড়তে পারে না।

কয়েকটি কাঁচা কারিপাতা ধুয়ে রান্নার সময় তরকারিতে ছড়িয়ে দিলে রান্নায় সুঘ্রাণ ও ঝাঁঝ চলে আসে। যে কোন প্রকার তরকারিতে কারিপাতা মিশিয়ে দেওয়া যায়। আপনি চাইলে কারিপাতা শুকিয়ে গুঁড়ো করে কারি পাউডা বানিয়ে নিতে পারেন। বোতলে ভরে রাখবেন সময়, সুযোগমত রান্নায় ব্যবহার করবেন। দেখে নিন কারিপাতার অসাধারণ কিছু উপকারিতা:

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে: কারিপাতায় রয়েছে ফেনলস নামক একটি রাসায়নিক উপাদান যা লিউকোমিয়া এবং প্রটেস্ট ক্যান্সারের মত জটিল রোগকে শরীরের কাছে ঘেঁষতে দেয় না। এছাড়াও কারিপাতায় রয়েছে কার্বেজল অ্যালকালোয়েড নামক একটি উপাদান যা এ ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে সহায়ক। ত্বকের সংক্রামণ কমাতে: কারিপাতায় যে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ফাঙ্গাল প্রপাটিজ তা যে কোন ধরণের ত্বকের সংক্রামণ বা ত্বকের ইনফেকশন কমাতে দারুন সহায়তা করে থাকে। তাই যাদে ত্বকের সমস্যা রয়েছে তারা নিয়মিত কারিপাতা খান।

হৃদযন্ত্র সুস্থ্য রাখতে: কারিপাতায় এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে এবং ভালো কোলেস্টেরল এর মাত্রা বাড়াতে সহায়তা করে। যদি খারাপ কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে থাকে তবে হার্টের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা অনেক কম। রক্তশূন্যতা হতে বাঁচায়: আয়রণ ও ফলিক এসিড রয়েছে কারিপাতায়। শরীরের লোহিত রক্তকণিকার মাত্রা বাড়াতে কারিপাতার জুড়ি মেলা ভার। এ জন্য প্রতিদিন সকালে একটি খেজুরের সাথে দুটি কারিপতা চিবিয়ে খান তাহলে উপকৃত হবেন।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখে: যদি আপনি প্রতিদিন কারিপাতা খান তবে ইনসুলিনের মাত্রা কার্য ক্ষমতা বাড়াতে শুরু করে। ফলে রক্তচাপ শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ থাকে। কারিপাতায় উপস্থিত ফাইবার ও ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ বিশেষ ভূমিকা পালন করে। চুলের যন্তে কারিপাতার ব্যবহার: কারিপাতার পুষ্টি উপাদান আপনার পেকে যাওয়া চুলকে হারিয়ে যাওয়া রং ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে। কয়েকটি কারিপাতা তেলে মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন এবং মাথার খুলির উপর এটি লাগান। এটি চুলের স্বাস্থ্যর উন্নতি ঘাতে ব্যাপক সহায়তা করে থাকে।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x