Thursday , January 28 2021
image: google

যেভাবে বুঝবেন শরীরের ক্যালসিয়ামের ঘটাতি রয়েছে

অনলাইন ডেক্স: মানব শরীরের অন্যন্যা খনিজ উপাদানগুলির মধ্যে অন্যতম হলো ক্যালসিয়াম। বেশ কয়েকটি কারণে মনে করা হয় যে শক্ত হাড়ের জন্য দুধ শুধু শিশুদের নিয়মিত খাওয়া দরকার। আসলে নিয়মিত দুধ পান প্রতিটি মানুষের করা উচিৎ কেননা এই ক্যালসিয়ামের অন্যতম প্রাকৃতিক উৎস হলো দুধ। ক্যালসিয়ামের অভাব হলে শরীরের নানা রোগের উপসর্গ দেখা দেয়। ক্যাসিয়াম রক্তচাপ ও হাড় শক্ত করতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে।

দুগ্ধজাত খাবার হলো ক্যালসিয়ামে অন্যতম প্রাকৃতিক উৎস। এছাড়াও চিজ, পণির, দই, সামুদ্রিক মাছ এবং সবুজ শাক সবজি হলো হলো ক্যাসিয়ামের উৎস। এ সময়ে আমরা সবাই কমবেশি স্বাস্থ্য সচেতন। সেই সাথে অস্বাস্থ্যকর খাবার, ফাস্টফুুড, জাঙ্কফুড, পিৎজা, ভাজাপোড়া ইত্যাদি খাবার খেয়ে নিয়ে ব্যস্ত থাকি ভুলেও নজর দেই না পুষ্টিকর খাবারের দিকে। ফলে শরীরে বাস বাঁধে নানা প্রকার রোগ।

জাতীয় হেলথ ইনিস্টিটিউট জানিয়েছেযে, নারী ও পুরুস সকলের প্রতিদিন প্রায় ১০০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম প্রয়োজন পড়ে। ক্যালসিয়ামের প্রভাবে আমাদের শরীরের যে ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে তার মধ্যে অন্যতম হলো: পায়ে খিঁচুনি ধরা: মাঝে মাঝেই যদি আপনার পায়ে খিঁচুনি ধরে তবে আপনি নিশ্চিত হবেন যে আপনার শরীরের পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি রয়েছে। এই ক্যালসিয়ামের অভাব দূর করতে হলে আপনাকে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে। এছাড়া রাতে শোয়ার আগে পা প্রসারত করুন এতে ব্যথা কিছুটা কম হবে।

দাঁতে গর্ত সৃষ্টি: আপনার কি আগের চেয়ে দাঁতের গর্ত বড় হয়েছে কিংবা গর্ত বেড়ে গিয়েছে? এতে শুধু মিষ্টি জাতীয় খাবারকে দায়ী করবেন না। আপনার শরীরের যখন পর্যাপ্ত ক্যালসিয়ামের অভাব ঘটে তখন এমনটি হতে পারে। ঝি ধরা বা অসাড় হওয়া: হঠাৎ হাতে কিংবা পায়ে ঝি ধরে কিংবা অসাড় অনুভব করবেন তখন আপনি ধরে নিতে পারেন যে এতে আপনার ক্যালসিয়ামের ঘাটতি রয়েছে। কেননা এ ঝি ধরা কিংবা অসাড়তা অনুভব অনুভুত হয়ে থাকে ক্যালসিয়ামের কারণে।

নখে ভঙ্গুরতা সৃষ্টি: শরীর ও দাঁতের মতো নখেও ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পড়ে। সাধারণত ক্যালসিয়াম তার অভাব পূরণ করার জন্য শরীরের যেকোন স্থান হতে তা শুষে নিতে পারে। এই কারণে অনেক সময় আমাদের নখে এমন ভঙ্গুরতার সৃষ্টি হয়। ঘুমের ব্যঘাত ঘটা: মেডিকেল সাইয়েন্স অনুসারে ক্যালসিয়াম সিরোটোনিন উৎপাদন করতে সহায়তা করে থাকে, যা কিনা ঘুমের জন্য দারুন উপকারি। যখন আপনি গভীর ঘুমে থাকেন, তখন আপনার ক্যালসিয়াম লেভেল বেড়ে যায়। অতএব আপনার যদি রাতে ঘুম কম হয় তাহলে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পড়বে আপনার শরীরে।

খাবাপ অঙ্গভঙ্গি: ক্যালসিয়ামের অভাব মানে হলো, আপনার হাড় দূর্বল আর দুর্বল হাড় মানেই হলো আপনার শরীও দূর্বল। এই দূর্বলতার কারনে বাজে অঙ্গভঙ্গি এমনিতেই চলে আসবে। ফরে আপনার কাঁধ ও পিঠের ব্যথা সৃষ্টি হবে হৃদরোগে আক্রান্ত : ক্যালসিয়াম পেশী সংকোচন এবঙ হওয়ার জন্য দায়ী। অতএব ক্যালসিয়ামের অভাব হলে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া প্রবল সম্ভবনা থাকে। আর হৃদরোগে একবার আক্রান্ত হলে এ রোগে বার বার আক্রান্ত হওয়া ঝঁকি থাকে। তাই নিয়মি পাতে রাখুন ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার।

স্মৃতিশক্তি লোপ পায়: অনেক সময় আমাদের হয়ে থাকে যে, রিমোট কিংবা শখের ফোন কোথায় রেখেছেন তা ঠিকমত মনে করতে পারছেন না। এটিও সাধারণত হয়ে থাকে ক্যালসিয়ামের অভাব হলে। কেননা এতে স্নায়ুবিক উপসর্গগুলো প্রবল হয় ফলে আপনি ভুলে যান কী কোথায় রেখেছেন। সর্তকতা: নিজে ভুল করেও বাজার হতে কোন প্রকার ক্যালসিয়াম জাতীয় ওষুধ সেবন করবেন না। যদি একান্ত সেবন করতে হয় তবে তা ডাক্তার এর পরামশের্ সেবন করুন।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *