Image: google

বিয়ের জমানো টাকায় প্রতিদিন ৪০০ অসহায় লোককে খাওয়াচ্ছেন অটো চালক

বিয়ের জমানো টাকায় প্রতিদিন ৪০০ অসহায় লোককে খাওয়াচ্ছেন অটো চালক – বিয়ের জন্য দু’লাখ টাকা জমিয়েছিলেন পুনের (Pune) অটো চালক (Auto Driver) ৩০ বছরের যুবা। কিন্তু করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) সংক্রমণ ও

দেশব্যাপী লকডাউনের কারণে স্থগিত বিয়ে। এই পরিস্থিতিতে নিজের জমানো টাকা থেকেই পরিযায়ী শ্রমিক (Migrant) ও পুনের পথে লকডাউনের ফলে প্রবল অসুবিধার সম্মুখীন হওয়া মানুষদের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন ওই অটো চালক। তাঁর নাম অক্ষয় কোঠাওয়ালে। কেবল এইটুকুতেই তিনি থেমে থাকেননি। পাশাপাশি বর্ষীয়ান নাগরিক ও গর্ভবতী মহিলাদের

বিনামূল্যে নিজের অটো করে হাসপাতালে পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি। এছাড়াও শহরের বিভিন্ন শ্থানে নিয়ে কেমন করে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে করোনার সঙ্গে লড়তে সে ব্যাপারেও সচেতনতা জারি করার কাজ করছেন তিনি। পরিযায়ীদের জন্য ১,০০০ বাস নামানোর প্রিয়াঙ্কা গান্ধি আবেদন মঞ্জুর প্রতিদিন প্রায় ৪০০ লোকের খাবার তৈরির

বন্দোবস্ত করছেন তিনি। তাঁকে সাহায্য করেন তাঁর বন্ধুরা। তারপর ঘুরে ঘুরে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে সেই খাবার তিনি বিতরণ করেন দরিদ্র ও পরিযায়ীদের মধ্যে। অক্ষয় জানাচ্ছেন, ‘‘একজন অটো চালক হিসেবে কাজ করতে করতে আমি আমার বিয়ের জন্য ২ লক্ষ টাকা জমিয়ে ফেলেছি। বিয়ে হওয়ার কথা ২৫ মে। কিন্তু লকডাউনের মেয়াদ

বাড়ায় বিয়ে স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। আমি ও আমার হবু স্ত্রী।” স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের জারি করা নিষেধাজ্ঞাকে শিথিল করতে পারবে না রাজ্য: কেন্দ্র তিনি আরও জানাচ্ছেন, ‘‘আমি দেখলাম রাস্তায় কত মানুষ রয়েছেন যাঁরা এই পরিস্থিতিতে বেঁচে থাকার জন্য দু’মুঠো খাবারের বন্দোবস্তও করতে পারছেন না। আমার কিছু বন্ধু ও আমি মিলে তাই

পরিকল্পনা করলাম এই সব শ্রমিক ও অন্যান্য অভাবী মানুষদের সাহায্য করার ব্যাপারে।” অক্ষয় জানাচ্ছেন, বিয়ের জন্য জমানো টাকা দিয়ে চাপাতি ও সবজি তৈরি করছেন তাঁরা। এবং তারপর তা বিতরণ করছেন শহরের পথে পথে। অন্তত ৩১ মে পর্যন্ত এই বিতরণের কাজটি তাঁরা করে যাবেন বলে জানিয়েছেন অক্ষয়। অটোতে লাগানো মাইকের সাহায্যে

পথে চলার সময় সকলকে করোনা সংক্রমণ এড়াতে প্রয়োজনীয় সাবধানতা সম্পর্কে প্রচারও করেন। তাঁরা পথচলতি মানুষকে মাস্ক ও স্যানিটাইজারও বিতরণ করেন। এভাবেই নিজেদের সীমিত সাধ্যের মধ্যে অসহায় মানুষের পাশে

দাঁড়িয়েছেন এই অটো চালক ও তাঁর বন্ধুরা। বিয়ের জন্য জমানো টাকা অবলীলায় তিনি খরচ করছেন অভাবী মানুষদের মুখে হাসি ফোটাতে।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *