Image: google

প্রথমে ঘড়ি বানিয়ে পু’লিশ কর্তৃক আ’টক; তারপরই রিয়েল হিরো!

ঘড়ি বানিয়ে প্রথমে পুলিশ কর্তৃক আটক; তারপরই রিয়েল হিরো! – ডালাস শহরের ঘরে বসে একটি ঘড়ি বানিয়েছিল আহমেদ মোহামেদ৷ তা নিয়েই শুরু হয়ে গেল হুলুস্থুল৷ প্রথমে গ্রে’প্তার হলেন তাপরই হলেন রিয়েল হিরো! এমন কপাল কজনের জোটে বলুন?

তারপর থেকে চলছে গ্রেপ্তারের নিন্দা আর তার প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ৷ বারাক ওবামাও দাওয়াত দিয়েছেন তাকে! হিলারি ক্লিনটন বাহবা দিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় । নিরীহ, আদুরে চেহারার আহমেদকে হাতকড়া পরিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়ার একটা ছবি প্রকাশ করা হয়েছিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে৷

সেই ছবি দেখেই প্রতিবাদে ফেটে পড়ে সবাই৷ সবার এক কথা– নিজের বানানো ঘড়ি স্কুলে নিয়ে যাওয়ায় একটি ছেলে গ্রেপ্তার হবে এ কেমন কথা? এতো ভারী অন্যায়! সমর্থনে জোয়ার, ওবামার নিমন্ত্রণ সর্বস্তরের মানুষ তো বটেই, এমনকি প্রেসিডেন্ট ওবামাও স্কুল কর্তৃপক্ষ এবং টেক্সাস পুলিশের আচরণে প্রতিবাদ জানাতে কুণ্ঠাবোধ করেননি৷

ওবামা হোয়াইট হাউসে তার সঙ্গে একটু সময় কাটানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন৷ আহমেদের উদ্দেশ্যে টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘সুন্দর ঘড়ি, আহমেদ! তুমি কি ওটা হোয়াইট হাউসে নিয়ে আসতে চাও? বিজ্ঞান ভালোবাসো তুমি, তোমার মতো আরো অনেক শিশুকে উৎসাহ দিতে চাই আমরা৷’

গুগল মেলায় বিশেষ আসন উদ্ভাবনের নেশা আছে এমন কিশোর আহমেদ মোহামেদের জন্য গুগলও দারুণ এক অফার দিয়েছে৷ তারা জানিয়েছে, মিষ্টি ছেলে আহমেদের জন্য গুগলের বিজ্ঞান মেলায় একটি আসন এরই বরাদ্দ করা হয়ে গেছে৷

সাকারবার্গও আহমেদের পাশে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক সাকারবার্গও আহমেদকে কিছুক্ষণের জন্য পাশে চান৷ যখনই সময় হবে আহমেদ যেন একবার ফেসবুকের প্রধান কার্যালয়ে ঘুরে যায়– এই অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি৷

নাসায় আমন্ত্রণ:
ঘড়িসহ যখন স্কুল থেকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয় তখন আহমেদের পরনে ছিল যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ সংস্থা নাসা’র লোগো আঁকা টি-শার্ট৷ নাসা তাতে খুবই খুশি৷ তারাও সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছে আহমেদকে৷
হিলারি ক্লিনটনের বাহবা:
ডালাসের স্কুল কর্তৃপক্ষের অভিযোগে পুলিশ আহমেদকে গ্রেপ্তার করায় হিলারি ক্লিনটনও ক্ষুব্ধ৷ আহমেদ যাতে ভবিষ্যতেও উদ্ভাবনের নেশা না ছাড়ে এমন অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি টুইটারে৷

পুলিশের বক্তব্য:
ডালাস পুলিশ বলেছে, আহমেদ মোহামেদের খারাপ কোনো ভাবনা ছিল না সে বিষয়ে তারা নিশ্চিত৷ তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ বর্ণবাদী দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এক মুসলিম কিশোরের বিরুদ্ধে এমন ব্যবস্থা নিয়েছে– সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই এমন ধারণা প্রকাশ করেছেন৷

টেক্সাসের এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘এখন সময়টাই এমন যেকোনো কিছুকেই হালকাভাবে দেখা খুব কঠিন৷ তাছাড়া ডিভাইসটা দেখলে কারো কিন্তু সন্দেহ হতেই পারে৷’

আহমেদ যা বললো:
ডালাস মর্নিং নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে কারো প্রতি বিশেষ কোনো অভিযোগ করেনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় সব মানুষের মন ছুঁয়ে যাওয়া ১৪ বছর বয়সী মুসলিম কিশোর৷ নতুন কিছু উদ্ভাবন করতে তার খুব ভালো লাগে– এ কথা জানিয়ে গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে ও শুধু বলেছে,

‘আমি একটি ঘড়ি বানিয়েছিলাম৷ আমি ছোটখাটো একটা কিছু দেখাতে চেয়েছিলাম কিন্তু ওরা ভুল বুঝল। আর তাই ওটা বোমার মতো কিছু হতে পারে ভেবে গ্রেপ্তার করা হলো৷’ সূত্র : ডয়চে ভেলে

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x