Thursday , November 26 2020
Image: google

প্রতি সোমবার এই কাজটি করুন মিলবে স্বয়ং মহাদেবের কৃপা

প্রতি সোমবার এই কাজটি করুন মিলবে স্বয়ং মহাদেবের কৃপা – হিন্দু শাস্ত্রে নজর দিলে জানতে পারবেন সপ্তাহের প্রতিটি দিনের সঙ্গে কোন না কোন দেবতার যোগ রয়েছে। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে সেই বিশেষ দিনে সেই বিশেষ দেবতার পুজো করলে দারুন ফল পাওয়া যায়।

ঠিক তেমনই সোমবার হচ্ছে ভগবান শিবের দিন। সোমবার এই জিনিস গুলো দিয়ে ভগবান শিব ঠাকুরের আরাধনা করলে সকল মনস্কামনা পূর্ণ হয়। বেদ এবং শিব পুরাণ অনুযায়ী শিব ঠাকুরের আরাধনা করার সময় যদি বিশেষ কিছু ধরনের শস্যদানা নিবেদন করা হয় তাহলে নানা ধরনের উপকার মিলতে শুরু করে।

তাহলে আসুন জেনে নি সেইসব জিনিসগুলি সম্পর্কে।

১। যব বা বার্লি:
একের পর এক খারাপ ঘটনার সম্মুখীন হয়ে চললে যব বা বার্লি দিয়ে মহাদেবের আরাধনা করুন, দেখবেন দারুন উপকার পাবেন। এমনটা বিশ্বাস করা হয় প্রতি সোমবার এই শস্যদানা দিয়ে মহাদেবের আরাধনা করলে গৃহস্থের মধ্যের খারাপ শক্তি পালাতে শুরু করে।
২। চাল:
অল্প দিনে অনেক টাকার মালিক হয়ে উঠতে চাইলে প্রতি সোমবার মহাদেবের আরাধনা করার সময় অল্প পরিমাণে চাল নিবেদন করতে ভুলবেন না। শিব পুরাণ অনুযায়ী চাল দিয়ে মহাদেবের পুজো করলে যেকোনো ধরনের অর্থনৈতিক ক্ষতি হবার আসঙ্খা কমে যায়।

৩। মুগডাল:
শিব পুরাণ অনুযায়ী মহাদেবের আরাধনা করার সময় যদি সবুজ মুগডাল নিবেদন করতে পারেন তাহলে গৃহস্থের মধ্যে উপস্তিত নেগেটিভ এনার্জির মাত্রা কমতে শুরু করে। ফলে যেকোনো ধরনের ক্ষতি হবার আসঙ্খা কমে যায়।

৪। গম:
হিন্দু শাস্ত্রের ওপর লেখা একাধিক বই অনুসারে প্রতি সোমবার গম নিবেদন করে শিব ঠাকুরের পুজো করলে মা-বাবা হবার স্বপ্ন পুরন হতে সময় লাগে না। তাই যারা দাম্পত্য জীবনে অনেক চেষ্টা করেও মা-বাবা হয়ে উঠতে পারছেন না তারা গম নিবেদন করে মহাদেবের আরাধনা করুন।
৪। তিল: নানা রকম রোগের আক্রমণে জীবন অতিস্ট হয়ে উঠলে তিল দিয়ে দেবাদিদেবের আরাধনা শুরু করুন। দেখবেন দারুন উপকার পাবেন। এমনটা বিশ্বাস করা হয় এই উপাদানটি দেবাদিদেবের বেজায় পছন্দের। তাই পুজোর সময় তিল নিবেদন করলে ছট বড় যেকোনো পালাতে শুরু করে এবং আয়ু বৃদ্ধি হয়।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *