Wednesday , January 20 2021
image: google

গ্যাস সিলিন্ডারের সাথেই রয়েছে ৫০ লক্ষ টাকার বিমা! বিষয়টা সবার জানা দরকার

গ্যাস সিলিন্ডারের সাথেই রয়েছে ৫০ লক্ষ টাকার বিমা! বিষয়টা সবার জানা দরকার – এখন প্রত্যেক গৃহস্থের বাড়িতেই রয়েছে গ্যাস। এমনকি প্রত্যন্ত এলাকাতেও মানুষ গ্যাসে রান্না করে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন স্কিম যেমন উজ্জ্বলা যোজনা সহ একাধিক সুবিধাতে দরিদ্র মানুষজনও গ্যাস পান।

কিন্তু প্রত্যেক গৃহস্থের বাড়িতে গ্যাসের ব্যবহার থাকলেও অনেক সুবিধা কথা জানেন না ক্রেতারা। এমনকি গ্যাসের প্রথম কানেকশন নেওয়ার সময়েও এই বিষয়ে কিছুই জানানো হয় না একজন ক্রেতাকে। কিন্তু জানেন কি এলপিজি গ্যাস ইউজারদের ক্ষেত্রে ৫০ লক্ষ টাকার বিমার কভার থাকে। অবাক হচ্ছেন তো? হ্যাঁ, এটাই সত্যি। প্রত্যেক গ্রাহকের ক্ষেত্রে এই সুবিধা দেওয়া থাকে। তথ্য বলছে, যখন গ্যাস কানেকশন নেওয়া হয় তখনই সংশ্লিষ্ট গ্রাহককে এই বিমা করে দেওয়া হয়।

কিন্তু কখনই কোম্পানির তরফে এই বিষয়ে জানানো হয় না সংশ্লিষ্ট গ্রাহককে। এমনকি ডিলারও তা জানায় না। গ্রাহকদেরও এই বিষয়টি জানানোর কোনও ইচ্ছা থাকে না। ফলে সব মিলিয়ে পুরো বিষয়টিই অজানা থেকে যায়। গ্যাস কোম্পানিগুলির বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, সিলিন্ডারের কারণে যে কোনও ধরনের প্রাণহানি কিংবা সম্পত্তির ক্ষতি হলে তা বিশাল এই অংকের বিমার জন্যে আবেদন করা যাবে।

কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই বড়সড় দুর্ঘটনার পরেই এই বিষয়ে গ্রাহকদের কাছে কোনও তথ্য না থাকায় এই বিমার জন্যে কোনও আবেদন করা হয় না। কে দেয় এই ইন্সুরেন্স ক্লেম- কোনও বিপদ ঘটলে স্থানীয় গ্যাসের ডিলার প্রথমে সংশ্লিষ্ট গ্যাস এবং ওয়েল সংস্থাকে বিস্তারিত জানায়। পাশাপাশি বিমা সংস্থাকেও তা জানানো হয়। বিশাল এই অংকের এই ক্লেম পাওয়ার ক্ষেত্রে যে সমস্ত নিয়মকানুন রয়েছে তা পাওয়ার জন্যে স্থানীয় গ্যাসের ডিলারই সমস্ত রকম সাহায্য করবে।

পাশাপাশি যে সব ফর্ম এজন্যে পূরণ করতে হবে সেজন্যে ডিলারই সবরকম সাহায্য করবে। ইন্ডেন এবং এইচপি গ্যাসের সমস্ত নথিভুক্ত গ্রাহক স্থানীয় অফিসিয়াল গ্যাসের দোকান থেকে নতুন গ্যাসের কানেকশন নিলেই এই বিমার সুবিধা পাওয়া যাবে। ক্লেম পাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই পুলিশের কাছে করা এফআইআরের কপি।

মেডিক্যাল সার্টিফিকেট, পোস্টমর্টেম রিপোর্ট এবং ডেথ সার্টিফিকেট অবশ্যই প্রয়োজন। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই বিমা করা থাকা সত্ত্বেও মেলে না। কারণ অনেক ক্ষেত্রেই গ্রাহক পাইপ, রেগুলেটরের ISI চিহ্ন ছাড়া জিনিসপত্র ব্যবহার করে। আর তা করলে কখনও সংস্থা এই বিমার অংক দেবে না। দুর্ঘটনার ৩০দিনের মধ্যে এই সংক্রান্ত বিষয়ে ক্লেম না করলেও বিমা দেওয়া হবে না বলে শর্তে জানানো হয়েছে।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *