Thursday , November 26 2020
Image: google

এ সময় উপকার পেতে চায়ের সাথে মেশান এই ২টি মশলা

উপকার পেতে চায়ের সাথে মেশান এই ২টি মশলা – ঠান্ডা কিংবা সর্দি-কাশির সমস্যায় আরাম দেয় এককাপ চা। আম’রা প্রায় সবাই প্রতিদিন অন্তত এককাপ হলেও চা পান করি। তবে অনেকে আবার মনে করেন যে নিয়মিত চা পান করা

স্বাস্থ্যকর অভ্যাস নয়। অনেকে এটিকে আসক্তি বলতেও দ্বিধা করেন না। তবে নিয়মিত চা পানের অভ্যাস অ’ত্যন্ত স্বাস্থ্যকর হতে পারে। এককাপ চা আপনার শরীরকে ভেতর থেকে আরও শক্তিশালী করতে পারে। এর সঙ্গে কিছু মশলা

মেশালে তা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারে দ্রুত। আসলে এমন কোনো পানীয় কিংবা খাবার নেই যা খেলে সঙ্গে সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা একটি চলমান প্রক্রিয়া। এটি ধরে রাখতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হ’ল সঠিক, পুষ্টিকরভাবে খাওয়া। প্রতিদিনের খাবার এবং পানীয়তে সাধারণ কিছু উপাদান যু’ক্ত করলে তা

আপনাকে আরও বেশি সুস্থ রাখতে পারে। সঠিক উপাদান বাছাই আপনি যদি সঠিক উপকরণ এবং মশলা যোগ করেন তবে চা স্বাস্থ্যকর পানীয়গুলোর মধ্যে একটি হতে পারে। আদা, মধু বা গুড় হোক, বিশেষ উপাদান যু’ক্ত করলে তা আপনার চাকে আরও স্বাস্থ্যকর করে তোলে। চায়ে এই দুই উপাদান যোগ করুন চা তৈরি করার সময় এক চিমটি যষ্ঠি

মধুর গুঁড়া বা কয়েকটি লবঙ্গ যু’ক্ত করুন। এই দুই উপাদানই বেশ সহ’জলভ্য। এগুলো আমাদের শরীরের জন্য অ’ত্যন্ত উপকারী। এগুলো রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা উন্নত করে।

এছাড়াও এই দুই চা ঠান্ডা এবং কাশি সহ অন্যান্য ফ্লু জনিত রোগ থেকে বাঁ’চায়। এই দুই মশলার উপকারিত স’ম্পর্কে জেনে নিন-

যষ্ঠিমধু
যষ্ঠিমধু রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে অন্যতম সেরা গুল্ম। কাশি বা সর্দিজনিত রোগে আ’ক্রান্ত ব্যক্তিকে যষ্টিমধু খাওয়ার পরাম’র্শ দেয়া হয় কারণ এটি গলা বা শ্বা’স প্রশ্বা’সের সংক্রমণ থেকে মুক্তি দেয়। এর অ্যান্টি-ভাই’রাল বৈশিষ্ট্য ক্ষতিকর জীবাণুদের নষ্ট করে। হ’জমের সমস্যা দূর করতেও এটি কার্যকরী।

লবঙ্গ
চায়ের সঙ্গে লবঙ্গ মিশিয়ে পান করলে তা আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে। অনেকেই চায়ের সঙ্গে লবঙ্গ মিশিয়ে পান করেন। এটি কেবল চায়ের স্বাদই বাড়ায় না, সেইসঙ্গে এর শক্তিশালী বৈশিষ্ট্য শরীরের ভাই’রাস-সংক্রামিত কোষগুলো কার্যকরভাবে ধ্বংস করতে পারে। এটি শ্বা’সনালীকে পরিষ্কার রাখতেও সাহায্য করে। এটি আস্ত কিংবা গুঁড়া করে চায়ে ব্যবহার করতে পারেন।

দিনে কতটা চা পান করতে পারবেন? চা পান করতে যতই ভালোবাসুন না কেন, সেক্ষেত্রে সংযমের কথা ভুলে গেলে চলবে না। কোনোকিছুই অ’তিরিক্ত খাওয়া ভালো নয় তা সে যতই উপকারী খাবার হোক না কেন। বিশেষজ্ঞদের মতে দিনে চার-ছয় কাপ চা পান করলে তা-ই সর্বাধিক হিসেবে বিবেচিত হয়। তাই চেষ্টা করুন এর থেকে কম পরিমাণ চা

পান করতে। দিনে তিন কাপ পান করলেই যথেষ্ট। খাবার এবং জীবনযাপন স্বাস্থ্যকর করুন স্বাস্থ্যকর চা পানের পাশাপাশি অন্যান্য পুষ্টিকর খাবার এবং পানীয় রাখু’ন প্রতিদিনের খাবারের তালিকায়। একা চা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

বাড়িয়ে তুলতে পারবে না। ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ খাবার খান নিয়মিত। মৌসুমী ফল থাকুক পাতে। খাবারের পাশাপাশি নজর দিন ঘুম ও শরীরচর্চার দিকেও।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x