Image: google

এখানে ১ মুঠো চাল রাখলে সংসারে কোনদিনও অভাব অনটন হবে না

এখানে ১ মুঠো চাল রাখলে সংসারে কোনদিনও অভাব অনটন হবে না – মানুষ চায় সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধিতে জীবন যাপন করতে। কিন্তু টাকা ছাড়া সেটা কখনোই সম্ভব নয়। মানুষ সারাদিন কাজ করে অর্থ উপার্জনের জন্য।

কিন্তু সেই টাকাই যদি জলের মতো খরচ হয়ে যায় তাহলে লাভ কি ? টাকার অভাব দূর করার জন্য প্রাচিনকাল থেকেই নানা রকম টোটকা ব্যবহার করা হয়। এখন আধুনিকতার যুগে ছেলে মেয়েরা ফ্যাশন নিয়ে ব্যাস্ত। তারা ভিন্ন ভিন্ন মানিব্যাগ, ওয়ালেট ব্যবহার করেন। অনেকেই জানেন না মানিব্যাগের ওপরেও নির্ভর করে অর্থভাগ্য। ব্যাগের রং এর ওপর বেশি প্রভাব ফেলে।

আজ আমরা এমনই কিছু সাধারণ টোটকা নিয়ে এসেছি, এই টোটকা গুলি মেনে চললে আপনার কোনোদিন অর্থাভাব থাকবেনা।
চাল ঃ অপ্রয়োজনীয় খরচ বন্ধ করতে, আর্থিক সমৃদ্ধি বৃদ্ধি করতে আপনাকে ২১টি চাল একটি কাগজে মুড়ে আপনার মানিব্যাগে রেখে দিতে হবে। এর ফলে আপনার বাড়তি খরচ কমবে আর অর্থের সমৃদ্ধি ঘটবে।

আশির্বাদ ঃ মা বাবা অথবা কোনো গুরুজনদের আশির্বাদি নোট জাফরান এবং হলুদ মিশিয়ে নিজের মানিব্যাগে রাখুন। এর ফলে আপনার আর্থিক সমৃদ্ধি ঘটবে, আর আপনি যেকোনো বিপদ থেকে রক্ষা পাবেন। রাস্তা ঘাটে কোনো অজানা বিপদে পড়বেন না।
ধনদেবী লক্ষ্মীর ছবি ঃ হিন্দু শাস্ত্র মতে ধন সম্পদের দেবী হলেন মা লক্ষ্মী। পারিবারিক আর্থিক উন্নতি করতে আমরা ধন সম্পদের দেবী লক্ষ্মীর পূজা করি। আপনাদের মানিব্যাগে একটি লক্ষ্মীর ছবি রাখুন,

দেখবেন আপনার অর্থ উপার্জন বাড়বে। আসল কথা হল আপনি অর্থের অভাব থেকে মুক্তি পাবেন। এটি খুব কঠিন পদ্ধতি নয়। এই সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করতে খুব একটা অসুবিধা হবেনা আপনার।
অশ্বত্থ পাতা ঃ পুরাণ মতে অশ্বত্থ গাছ সবসময়ই শুভ লক্ষণের প্রতীক। তাই একটি অশ্বত্থ পাতা নিয়ে তা জলে ধুয়ে মানিব্যাগে রেখে দিন। পাতাটি শুকিয়ে গেলে তা ফেলে দিয়ে সতেজ পাতা রাখুন।

এর ফলে আপনার কখনোই টাকার অভাব হবে না। ভুলেও শুকনো পাতা রাখবেন না। তাহলে হতে পারে উলটো ফল। টাকা আসার বদলে টাকা বেরিয়ে যাবে।
এছারাও যদি আপনার কোন ইচ্ছা থাকে তাহলে একটি সাদা কাগজে লিখে লাল খামে ভরে মানিব্যাগে রেখে দিন। নিশ্চই আপনার মনের ইচ্ছা পুরন হবে।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x