Image: google

এক নজরে ফেসবুক সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য!

এক নজরে ফেসবুক সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য! – আপনারা যারা ফেসবুক ব্যবহার করেন, তাদের অনেকেই এই সোশ্যাল সাইটের অনেক তথ্য জানেন। কিন্তু এরপরও আপনার জানার বাইরে ফেসবুক সম্পর্কে অজানা তথ্য রয়েছে

আরো অনেক। যেগুলো জানলে, আপনার জানাটা নি:সন্দেহে আরো পাকাপোক্ত হবে। আপনার জানা এবং কিছু অজানা ফেসবুক তথ্য নিয়ে আজকের পোস্ট। এই পোস্টে এমন ১৫টি তথ্য থাকছে যেগুলো আপনাকে ফেসবুক সম্পর্কে আরো অভিজ্ঞ করে তুলবে।

ফেসবুক সম্পর্কে অজানা তথ্য fb ceo আসুন, ফেসবুক সম্পর্কে জেনে নেই ১৫টি অজানা তথ্য। চলুন তবে জেনে নেই –

১. ফেসম্যাশ থেকে ফেসবুক- আজকে যে ফেসবুক আমরা ব্যবহার করছি, আগে সেটি ছিল ফেসম্যাশ। যেখানে দু’জনের ছবি দিয়ে ওই দু’জনের মধ্যে কে বেশি ‘হট’ তা সিলেক্ট করতে বলা হতো। হট বলতে আসলে সুন্দর বা সুন্দরী বোঝানো হতো। যাইহোক, সিলেক্ট করার জন্যে দু’টির মধ্যে একটি ছবিতে ক্লিক করতে হতো। এটা ছিল মূলত দু’জনের মধ্যে একজন সুন্দরী নির্বাচনের ভোটাভুটি। আর ক্লিক করার পরই আরো দু’টি ছবি চলে আসতো এবং এভাবেই চলতে থাকতো। facemash এটা ২০১৩ সালের কথা। এই বছরের ২৮শে অক্টোবর ফেসম্যাশ অনলাইনে আসে যখন মার্ক জুকারবার্গ হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়েন। আর ফেসম্যাশ তৈরি করেন তিনি তার ক্লাসমেটদের সঙ্গে স্রেফ মজা করার জন্য।

কিন্তু যখন তিনি দেখলেন যে ওয়েবসাইটটি লঞ্চ করার প্রথম ৪ ঘন্টায় ৪৫০ জন ভিজিটর প্রবেশ করেছে এবং তারা এই ৪ ঘন্টায় ২২ হাজার ছবিতে ভোট দিয়েছে, তখন তিনি এটাকে সিরিয়াসলি নিলেন। ফেসবুকে সিঙ্গেল নেম অ্যাকাউন্ট খুলবেন যেভাবে ফলশ্রুতিতে, পরের বছরই অর্থাৎ ২০০৪ সালে মার্ক ফেসম্যাশের নতুন সংস্করণ তৈরি করেন এবং নাম দেন দিফেসবুক। জানুয়ারীতে শুরু করা দিফেসবুকের অফিস নেয়া হয় জুনে। একজন প্রোগ্রামার, একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার এবং একজন মার্কেটিং এক্সপার্ট নিয়ে নতুন অফিস চালু হয়। আর ডিসেম্বরের মধ্যেই সফলতা আসতে শুরু করে যখন ওয়েবসাইটটির ভিজিটর ১০ লাখে পৌঁছে যায়। যাইহোক, উত্তরোত্তর সফলতায় পরবর্তী বছর দিফেসবুক নামটি পাল্টে শুধু ফেসবুক রাখা হয়।

২. জুকারবার্গকে ব্লক করা যায় না- আপনার ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা যে কাউকেই আপনি চাইলে ব্যান করতে পারেন, ব্লক দিয়ে তার সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে পারেন। কিন্তু কখনোও কি মার্ক জুকারবার্গকে ব্লক করার চেষ্টা করেছেন? জেনে নিন হ্যাকারের হাত থেকে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখার সহজ উপায় না, আপনি চাইলেও পারবেন না। কারণ তিনি ফেসবুক বানিয়েছেন আর তিনি চাইলেই যে কোনো প্রোফাইল দেখতে পারবেন। সেজন্য এমনভাবে কোডিং করা হয়েছে যাতে কেউ জুকারবার্গকে ব্লগ করতে না পারে। এটা ফেসবুক সম্পর্কে অজানা তথ্য হিসেবে খুব বেশি না হলেও দারুণ ইন্টারেস্টিং।

৩. চিনে নিষিদ্ধ ফেসবুক- ফেসবুক ছাড়া যখন দুনিয়ার মানুষ অচল, তখন চিনের মত উন্নত দেশে ফেসবুককেই নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে, এশিয়াতে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ২৫৫ মিলিয়ন।
৪. আপনার ফেসবুক পোস্ট আচ্ছা, আপনি তো ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন, আবার অনেক সময় সেটা ডিলিটও করে দিচ্ছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন এই বক্সে আপনি যে কোনো কিছু লিখে পোস্ট করছেন বা লিখে আবার মুছে দিচ্ছেন সেটিও কিন্তু ফেসবুকের সার্ভারে রেকর্ড হচ্ছে।

৫. বিশ্বে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা- সারা পৃথিবীর বর্তমান জনসংখ্যা ৭.২ বিলিয়ন আর এই জনসংখ্যার ১১ শতাংশ লোকই ফেসবুক ব্যবহার করে। চীন ছাড়া আর এমন কোন দেশ নেই যেখানে ফেসবুক ব্যবহারকারী নেই। কোন দেশে সংখ্যাটা হয়তো বেশি, কোন দেশে কম কিন্তু সব দেশেরই মোট জনসংখ্যার একটা বিশাল অংশ ফেসবুকে রয়েছেন। ৬. বেশি ব্যবহারকারী দেশ সবাইতো ফেসবুক ইউজ করে কিন্তু আপনি কি জানেন ফেসবুকের সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে কোন দু’টি দেশে? দেশ দু’টি হল Canada এবং USA। কারণ, এই দুই দেশে রেগুলার ফেসবুকে সক্রিয় থাকে প্রায় ১৫৭ মিলিয়ন মানুষ।

৮. নিরন্তর নতুন অ্যাকাউন্ট আপনি কি জানেন সারাবিশ্বে এখনও জনপ্রিয়তা এত বেশি যে ফেসবুকে প্রতি ৫ সেকেন্ডেই একটা করে নতুন অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে থাকে। হয়তো আমি এই লেখাটি লিখতে লিখতেই ফেসবুকে হাজার হাজার নতুন অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেছে।
৯. সবচেয়ে বেশি লাইক- ফেসবুকের সবচেয়ে বেশি লাইক পাওয়া পেজ কোনটি বলতে পারবেন? না ফেসবুকের নিজস্ব অফিসিয়াল পেজ এই তালিকায় নেই। সবচেয়ে বেশি লাইক পাওয়া পেজটি হল Facebook for every phone এই পেইজটি, এরপর আছে ফেসবুক পেজ, এবং youtube এর ফেসবুক পেজ।

১০. ফেসবুকে ব্যয় করা সময়- এমন অসংখ্য মানুষ রয়েছেন যারা ফেসবুকে ঘন্টার পর ঘন্টা কাটিয়ে দেন। এমনকি, কিছু এমন মানুষও রয়েছেন, যাদের সারাদিনই কেটে যায় ফেসবুকে। তবে, সারা পৃথিবীর সব মানুষের গড় হিসেবে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রতি মাসে ১১ ঘন্টা ৬৬ মিনিট ফেসবুকে ব্যয় করেন। ফেসবুক সিক্রেট আইডি তৈরী করুন, ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখুন আরেক পরিসংখ্যানে দেখা যায় একজন ব্যবহারকারী গড়ে প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে সময় ব্যয় করেন ফেসবুকে। আর একজন ব্যবহারকারীর গড়ে ১৪০-৫০ জন ফ্রেন্ড থাকে।

১১. অ্যাপস ও গেমস ফেইসবুক- কেবল সোশ্যাল মিডিয়া না। এখানে আছে প্রায় ১ কোটি অ্যাপস। আর প্রায় ২৫ কোটি গেমস্। আর এ-সব অ্যাপস্ ও গেমস্ এর ফেসবুকে পেজ আছে প্রায় ৫ কোটি। আর প্রায় এক ট্রিলিয়নের মত লাইক আছে এ-সব পেজের। তবে, গেমস্ এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে রয়েছে Texas Hold’em Poker। এই গেমটির ফ্যান পেজটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং এই পেজটির ফ্যান রয়েছে প্রায় ৪১০ কোটি।

১২. ফেসবুকে ফটো আফলোড- আপনি প্রতি দিন কিংবা প্রতি মাসে ফেসবুকে কতগুলো ফটো আফলোড দেন? নিশ্চয়ই কখনো চিন্তা করেননি কিংবা হিসেব করে দেখেননি। আপনি দিনে বা মাসে যতগুলো ফটোই আফলোড করুন, ফেসবুকে প্রতি ২০ মিনিটের মাথায় ফটো আফলোড হয় ২৭ লক্ষ ১৬ হাজার। আর ঘন্টায় আফলোড হয় এর ৩ গুণ। তাহলে, দিনে আর মাসে ফেসবুকে সারা পৃথবী থেকে কি পরিমাণ ফটো আফলোড হয় তা ভাবতে গেলে মাথা গরম হয়ে যাবে, তাই না?

১৩. ফেসবুক স্টেটাস ও কমেন্টের সংখ্যা- আপনি নিয়মিত স্টেটাস আফডেট দেন আর না দেন প্রতি ২০ মিনিটে বিশ্ব জুড়ে ১৮ লক্ষ ৫১ হাজার মানুষ ফেসবুকে স্টেটাস আফডেট করে। আর আপনি কারো পোস্টে বা স্টেটাসে কমেন্ট করুন আর নাই করুন, জেনে রাখুন যে প্রতি ২০ মিনিটে ফেসবুকে কমেন্ট পড়ে ১ কোটিরও উপরে।
১৪. তারকাদের ফেসবুক- তারকাদের মধ্যে বেশি ফেসবুক ফ্যান আছে ওয়াকা ওয়াকা খ্যাত শাকিরার ফ্যান পেজে। এরপর দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছেন এমিনেম ও রিহান্না এই দুইজন।

১৫. ঘুম থেকে উঠেই ফেসবুক আপনি সকালে ঘুম থেকে উঠে কি করেন? উঠেই কি ফেসবুকে ঢুকে পড়েন মানে ফেসবুকে কে কি করলো তা চেক করেন? আপনি চেক করুন আর না করুন, বিশ্বের তরুণ-তরুণী থেকে শুরু করে মাঝ বয়সীদের শতকরা প্রায় ৪৮ ভাগ লোক ঘুম থেকে উঠেই আগে ফেসবুক চেক করেন।

About By Editor

Check Also

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে ১ সন্তানের মা ভারত থেকে চলে আসলেন বাংলাদেশে- প্রেম মানে না কোনো বাঁধা, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *